বাংলাদেশ

গজারিয়ায় দন্ত চিকিৎসার বেহাল দশা স্বাস্হ্য পরিচালক অসুস্থ

সুদৃশ্য চেম্বার। আছে রংবে রংগের সাইনবোর্ড। তাতে হরেক রকম ডিগ্রি এবং তা দাঁতের ওপর। যার অর্থ সে নিজে ও জানেনা।  এদের অনেকে দাঁতের সমস্যায় কোনো চিকিৎসা না দিলেও শুধু ওষুধের পরামর্শপত্র লিখে দেওয়ার জন্য রোগীদের কাছ থেকে ভিজিট নিচ্ছেন ২৫০-৩০০ টাকা। আর দাঁতের সামান্য কাজের জন্য নেন হাজার হাজার টাকা। কিন্তু এই চিকিৎসকদের বেশিরভাগই ভুয়া। দন্ত চিকিৎসায় নেই কোনো শিক্ষাগত যোগ্যতার সনদ । মাধ্যমিক পাস করেছেন মানবিক বিভাগ থেকে। রাজধানীসহ সারা দেশে এ ধরনের হাজার হাজার ভুয়া ‘দন্ত চিকিৎসক’ আছেন বলে আশঙ্কা করছেন র‌্যাবের  আদালতের সঙ্গে জড়িতরা। 

বাংলাদেশ মেডিকেল অ্যান্ড ডেন্টাল কাউন্সিল (বিএমডিসি) ও ব্যাচেলর অব ডেন্টাল সার্জারি  (বিডিএস) ডিগ্রির সনদ না থাকলেও অনিবন্ধিত ভুয়া চিকিৎসকরা রোগীর চিকিৎসা দিয়ে যাচ্ছেন। আর এর মধ্য দিয়ে তারা শুধু রোগীর সঙ্গে প্রতারণাই করছেন না একইসঙ্গে দাঁতের চিকিৎসার মতো সংবেদনশীল চিকিৎসা যথাযথভাবে না করে রোগীর জীবন ঝুঁকির মধ্যে ফেলছেন। যেন দেখার কেহ নেই । এ ব্যপারে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এর পরিচালক এর সাথে কথা বলতে গেলে তার কক্ষে তাকে পাওয়া যায়নি। 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *